ঢাকাশনিবার , ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচংয়ে দুই গ্রামের বিরোধ নিস্পত্তি হওয়ায় জনমনে স্বস্তি

ইমদাদুল হোসেন খান
সেপ্টেম্বর ১০, ২০২২ ৫:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বানিয়াচংয়ে সামাজিকভাবে দুই গ্রামের বিরোধ নিস্পত্তি করা হয়েছে। এতে ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ থেকে রক্ষা পেয়েছেন হাজার হাজার মানুষ।

পঞ্চায়েতি জলমহাল নিয়ে পাইকপাড়া ও মিনাট গ্রামের মধ্যে সৃষ্ট উত্তেজনা ও বিরোধ শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) মিমাংসা হওয়ায় বানিয়াচং সদরের শান্তিপ্রিয় মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

জানা যায়, যাত্রা দিঘীর নিকটবর্তী একটি জলমহালের মালিকানা নিয়ে সম্প্রতি পাইকপাড়া ও মিনাট গ্রামের মধ্যে বিরোধসহ উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

উভয় গ্রামের লোকজনের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিলে উপজেলা সদরের চেয়ারম্যানগণসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ শালিসের উদ্যোগ নেন।

শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দারুজ্জামান খান ধন মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খানের পরিচালনায় দুই গ্রামের মধ্যস্থলে শালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এতে উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল বাহার খান, ১নং বানিয়াচং উত্তর-পূর্ব ইউপির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খান, সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন, ২নং বানিয়াচং উত্তর-পশ্চিম ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ওয়ারিশ উদ্দিন খান, ৩নং বানিয়াচং দক্ষিণ-পূর্ব ইউপি’র চেয়ারম্যান আরফান উদ্দিন, ৪নং বানিয়াচং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, সইদ্যরটুলা ছান্দের সর্দার অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম খান, উপজেলা বিএনপির সভাপতি মুজিবুল হোসেন মারুফ, শেখের মহল্লার সর্দার মুতাক্বিন বিশ্বাসসহ বিভিন্ন ছান্দ ও মহল্লার সর্দারগণ এবং বিরোধীয় দুই গ্রামের জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে উপস্থিত মুরুব্বিরা বিচার-বিশ্লেষণ করে বিরোধপূর্ণ জলমহালটির মালিকানা পাইকপাড়া গ্রামের রায় দিলে মিনাট গ্রামের সর্দারসহ জনসাধারণ মেনে নেন। পরে দুই গ্রামের সর্দারসহ জনসাধারণকে মিলিয়ে দেয়া হয়।

পাইকপাড়া ও মিনাট গ্রামবাসীর এ বিরোধ নিস্পত্তি হওয়ায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকায় থাকা বানিয়াচং সদরের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

Developed By The IT-Zone