ঢাকারবিবার , ৫ জানুয়ারি ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অগঠনতান্ত্রিকভাবে পৌর ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করেছে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ

অনলাইন এডিটর
জানুয়ারি ৫, ২০২০ ৫:৩৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিশেষ প্রতিবেদন,আমার হবিগঞ্জ॥ প্রায় ৪ বছর আগে হবিগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আংশিক কমিটি ঘোষণা করেছিল হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ। গত শনিবার (৪ জানুয়ারি) বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দলীয় প্যাডে বর্তমান আংশিক কমিটির সভাপতি ফয়জুর রহমান রবিনকে পুনরায় আহবায়ক, বিজন চন্দ্র দাসকে ১ম যুগ্ম আহবায়ক, ৫৪ জন যুগ্ম আহবায়ক ও ৪২ জনকে সদস্য করে মোট ৯৮ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দিয়েছে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুর রহমান ( জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জনাব আবু জাহির এমপি’র ভাতিজা) ও সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি।

ছবিঃ ২য় যুগ্ম আহবায়ক সুজন ভট্টাচার্য  বিএনপি নেতা জিকে গউসের সাথে।

পাশাপাশি আাগামী ৩ মাসের মধ্যে সকল ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলন সম্পন্ন করে হবিগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের সম্মেলন করার জন্য এই আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দিয়েছে তারা।


ছবিঃ ২০১৬ সালে প্রদত্ত হবিগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগ কমিটি।


ছবিঃ ৯৮ সদস্য বিশিষ্ট পৌর ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির প্রথম পাতা।


ছবিঃ ৯৮ সদস্য বিশিষ্ট পৌর ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির দ্বিতীয় পাতা।


ছবিঃ ৯৮ সদস্য বিশিষ্ট পৌর ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির শেষ পাতা।

এদিকে এই কমিটি ঘোষণা সম্পূর্ণ নিয়মবহির্ভূত বলে আখ্যায়িত করেছে হবিগঞ্জ জেলার সাবেক ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ছাত্রলীগ নেতা আমার হবিগঞ্জকে জানান, বর্তমান কমিটি যথাযথ উপায়ে বিলুপ্ত না করেই বর্তমান সভাপতি ফয়জুর রহমান রবিনকেই পুনরায় আহবায়ক করা হয়েছে সেটা ছাত্রলীগের যথাযথ রীতিনীতি বিরোধী।। এছাড়াও কমিটিতে অছাত্র, বিবাহিত ও মাদকসেবীদের স্থান দেয়া হয়েছে। এই কমিটি প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই পুরো জেলা জুড়ে রসালো আলোচনার ঝড় বইছে।

ছবিঃ হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের মিছিলে যুগ্ম আহবায়ক রিগানের ছবি।

হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা জানান, সভাপতি থেকে আবার আহবায়ক হওয়া  ফাইজুর রহমান রবিন বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির ভাতিজা , তাছাড়া বর্তমান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুর রহমানের ও চাচাতো ভাই।

 

ছবিঃ সৈকত দেবনাথ কর্তৃক গালিগালাজের স্ক্রিনশট।

গত জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাবেক এমপি কেয়া চৌধুরীকে রক্ষিতা বলে গালি দিয়ে কুখ্যাত সৈকত দেবনাথ ও পেয়েছে যুগ্ম আহবায়ক পদ।

ছবিঃ ছাত্রদলের মিছিলে যুগ্ম আহবায়ক পদপ্রাপ্ত রুমন আহমেদ রনি।

জেলা আওয়ামী লীগের এক সিনিয়র নেতা বলেছেন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির ভাতিজা হলো বর্তমান জেলা ছাত্রলীগের ভাতিজা। আবার এই ভাতিজাই পৌর ছাত্রলীগে তারই আরেক ভাইকে আহবায়ক বানিয়েছে। এ যেনো ঘরের ভেতর ঘর, মশারীর ভেতর মশারী।

ছবিঃ যুগ্ম আহবায়ক জাহাংগির আলমের বিয়ের নোটারি ডকুমেন্ট।

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান জয়ের সাথে। তিনি আমার হবিগঞ্জকে জানান, এই কমিটি অনুমোদন দেয়ার বিষয়ে আমি অবগত নই। আমাদের কোনো মতামত না নিয়ে এই কমিটি দিয়েছে জেলা কমিটি।

 

ছবিঃ যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল আহাদ মামুনের গায়ে হলুদের আনন্দঘন মুহূর্ত।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত দৈনিক আমার হবিগঞ্জের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী নিম্নোক্ত নামধারী ব্যক্তিদের নামে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

১.(সুজন কুমার ভট্টাচার্য): তার বর্তমান পরিচয় সে হবিগঞ্জের টপ মাদক সম্রাট এর মধ্যে একজন,কিছুদিন আগে সময় টিভিতে নিউজ হয়েছে সুজন কে নিয়ে মাদকের ব্যাপারে। চার বছর আগে বিএনপি পন্থী ছিল, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী সাথে । সে তারেক জিয়া পরিষদ, হবিগঞ্জ পৌর শাখার সভাপতিরও দায়িত্ব পালন করেছিলো।
২.(কিবরিয়া আহমেদ মিশু): ৬বছর আগে বিয়ে করেছে বাচ্চা আছে।
৩.(শেখ ইশতিয়াক)মাদকসেবী এবং অছাত্র।
৪.(হেলাল উদ্দিন জনি) মালয়েশিয়া প্রবাস।
৫.(সাইফুর রহমান সেতু) মেয়ে কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত এবং অছাত্র।
৬.(শিপু) হবিগঞ্জের টপ ইভটিজার এর মধ্যে একজন মাদক মেয়ে কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত অছাত্র।
৭.(জাহাঙ্গীর আলম নীরব)বিবাহিত ও অছাত্র।
৮.(আব্দুল আহাদ মামুন) বিবাহিত ও অছাত্র।
৯.(শেখ সোহাগ) মেয়ে কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত এবং অছাত্র ।
১০.(মহিউদ্দিন আহমেদ সনি)অছাত্র।
১১. হাফিজুল রহমান রিগান, সাবেক ছাত্রদল ক্যাডার।

 

ছবিঃ বৌ বাচ্ছাসহ কিবরিয়া আহমেদ মিশু।

দৈনিক আমার হবিগঞ্জের কাছে বেশ কয়েকজনের বিয়ের কাবিননামা ও বিয়ের ছবি প্রমান হিসেবে সংরক্ষিত আছে।

Developed By The IT-Zone