ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৯ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নবীগঞ্জে সাংবাদিকের ‍উপর মামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বানিয়াচং প্রেসক্লাব

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ৯, ২০২০ ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

রায়হান উদ্দিন সুমন :   গত ৩০ মার্চ ত্রাণে অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ প্রকাশ করায় ইউপি চেয়ারম্যান হারুন কর্তৃক নির্যাতনের শিকার দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদের প্রতিনিধি, নবীগঞ্জ সাংবাদিক ফোরামের সাবেক সভাপতি ও নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য শাহ সুলতান আহমেদ, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক সমকালের প্রতিনিধি এম এ আহমদ আজাদ, দৈনিক আমার সংবাদের প্রতিনিধি এম মুজিবুর রহমান, চ্যানেল এস এর প্রতিনিধি বুলবুল আহমেদ, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক কালের কন্ঠের প্রতিনিধি মোঃ আলমগীর মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করায় এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে বানিয়াচং প্রেসক্লাব।

বুধবার (৮এপ্রিল) বানিয়াচং প্রেসক্লাবের সভাপতি হেমায়েত আলী খান ও সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান খলিলের স্বাক্ষরিত সংবাদপত্রে প্রেরিত এক পত্রে এ নিন্দা জানানো হয়েছে। তারা জানান,কলম সৈনিকদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি হচ্ছে। এই মামলা দিয়ে তাদের কন্ঠ তথা কলম বন্ধ করা যাবেনা। অন্যায় ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা সবসময় ছিল আছে এবং থাকবে। আমরা বানিয়াচং প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ উক্ত মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি ইউপি চেয়ারম্যান হারুন কে দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য আইনশঙ্খলা বাহিনীর কাছে দাবি জানাচ্ছি। এই মামলায় ৫ জন সাংবাদিক ছাড়াও সাকির আহমেদ নামের স্থানীয় এক যুবককে আসামী করা হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ মার্চ ত্রাণে অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ প্রকাশ করায় আউশকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহিবুর রহমান হারুন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে সাংবাদিক শাহ সুলতান আহমেদ উপর অতর্কিত হামলা চালান। এসময় চেয়ারম্যান হারুন নিজেই ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে পেটান সাংবাদিককে। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে আহত হন সাংবাদিক এম মুজিবুর রহমান ও সাংবাদিক বুলবুল আহমেদ। এ ঘটনায় সাংবাদিক এম মুজিবুর রহমান বাদি হয়ে পরের দিন ইউপি চেয়ারম্যান হারুনকে প্রধান আসামী করে ১০ জনের বিরুদ্ধে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় অভিযান চালিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে এক আসামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় চেয়ারম্যান হারুন। এখন পর্যন্ত চেয়ারম্যান হারুন পলাতক রয়েছে।

Developed By The IT-Zone