ঢাকাশনিবার , ২ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নবীগঞ্জে শিশুদের ডায়রিয়া প্রকোপ দেখা দিয়েছে

মোফাজ্জল ইসলাম সজীব
জুলাই ২, ২০২২ ৭:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নবীগঞ্জে শিশুদেের ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। গত সাত দিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৪৫ জন আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে অধিকাংশই শিশু।

আসন সংকুলণ না হওয়ায় রোগীরা বারান্দায় বিছানা পেতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানাগেছে, গত ৭ দিনে ৪৫ জন রোগী ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই শিশু।

প্রতিদিন গড়ে ৫-৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। শনিবার দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত ৪ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১০ জন রোগী।

আসন না থাকায় হাসপাতালের বারান্দায় রোগীরা বিছানা পেতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সরকারীভাবে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ জন হলেও বে-সরকারী ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা শতাধিক বলে স্থানীয় সূত্র জানাগেছে।

প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলের অধিকাংশ রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে না এসে পল্লী চিকিৎসকদের কাছে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

আবার কম আক্রান্ত রোগী হাসপাতালের বর্হিবিভাগে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী যাচ্ছেন। রোগী স্বজনরা অভিযোগ করেন হাসপাতাল থেকে শুধুই স্যালাইন দেয়া হচ্ছে। এছাড়া আর কোন ঔষধ সরবরাহ করা হচ্ছে না।

শনিবার(২ জুলাই) নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ঘুরে দেখাগেছে, ১০ জন ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বেডে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এর মধ্যে ৭ জন শিশু।

আসন না থাকায় রোগীরা বারান্দার ফ্লোরে বিছানা পেতে চিকিৎসা নিচ্ছে। ডায়রিয়া আক্রান্ত শিশু জামিলা আক্তার (৯ মাস ) সদর ইউনিয়নের বড় আলী পুর গ্রামের ইয়াহিয়া আহমেদ ( ১০) দুই ধরে চিকিৎসা নিচ্ছি শুধু খাবার স্যালাইন দেওয়া হয় ইয়াহিয়ার মা বলেন,আমার ছেলে অবস্থা মুটামুটি ভাল আগামীকাল চলে যাব বাড়িতে।

নবীগঞ্জ পৌর এলাকার রাজা বাদ গ্রামের জিসান আহমেদ (১৪ মাস) এর মা জানান,ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে দুই দিন আগে ভর্তি হয়েছি। হাসপাতাল থেকে শুরু দুই ব্যাগ স্যালাইন দিয়েছে।

এ ছাড়া সকল ঔষধ বাহির থেকে কিনতে হচ্ছে। শিশু আকলিমা আক্তার ১ নং বড় ভাকৈর ইউনিয়নের আমড়াখাইর গ্রামের আকলিমার মা বলেন ৪ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি আছেন, ও ১ নং বড় ভাকৈর বাগাউড়া গ্রামের তাঈবা বেগম( ৫ মাস) তাঈবার মা বলেন , ডায়েরিয়ার আক্রান্ত শিশুদের হাসপাতাল থেকে শুধু স্যালাইন ছাড়া আর কিছুই দেয়া হচ্ছে না।

তিন দিন হয়েছে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছি। স্যালাইন ছাড়া সকল ঔষধ বাহির থেকে কিনতে হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডাক্তার মোঃ ইমরান আহমেদ চৌধুরী বলেন, এক দিকে বন্যা, প্রচন্ড রৌদ আবহাওয়া গরম হওয়ায় ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই।

এ ডায়রিয়া সামাল দিতে পর্যান্ত আইভি স্যালাইন রয়েছে। রোগীদের স্যালাইন দেয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, এ ডায়েরিয়ার আক্রান্ত রোগীদের এ্যান্টিবায়োটিক দেয়ার প্রয়োজন হয় না।

Developed By The IT-Zone