ঢাকামঙ্গলবার , ১২ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দৈনিক আমার হবিগঞ্জে সংবাদ প্রকাশের পর : লাখাইয়ের বালুখোরদের বিরুদ্ধে আদালতের মামলা দায়ের

আতাউর রহমান ইমরান
জুলাই ১২, ২০২২ ৯:৫৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের প্রেক্ষিতে লাখাই উপজেলার বুল্লা বাজারে নদী তীরকে বিনা অনুমতিতে ঘাট হিসেবে ব্যবহার, রাস্তার ক্ষতিসাধন ও গন উপদ্রব সৃষ্টি করে বিভিন্নভাবে জনগনের ক্ষতিসাধন করে বেআইনীভাবে বালুর ব্যবসা পরিচালনাকারীদের বিরুদ্ধে আদালত স্বতঃপ্রনোদিত হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসাইনের আদালত এ মামলা করার আদেশ দেন। আদালত পিবিআইকে এ ঘটনা তদন্ত করে ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত ব্যক্তিদের বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত প্রতিবেদন ২১ আগস্ট তারিখের মধ্যে আদালতে দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন।

তদন্তকালে সার্বিত তথ্য উপাত্ত দিয়ে সহযোগিতার জন্য লাখাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও লাখাইয়ের সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে নির্দেশ প্রদান করা হয়।

অভিযোগে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার মূল কপি মামলার সাথে সংযুক্ত করার ও নির্দেশ দেন আদালত। এছাড়া লাখাই উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে আদেশ প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে সংবাদে বর্ণিত ঘাটের কার্যক্রম বন্ধের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ ও এই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন আদালতে দাখিলের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়।

আদালত আমার হবিগঞ্জে প্রকাশিত সংবাদ বিশ্লেষন করে বলেন, লাখাই উপজেলার বুল্লা বাজারে স্থানীয় সুতাং নদীর তীর কে বিনা অনুমতিতে ও ইজারা বহির্ভূতভাবে বালুঘাট হিসাবে ব্যবহার করে স্থানীয় নদীর তীর ও রাস্তাঘাট গুরুতরভাবে নষ্ট করা সহ ব্যাপক শব্দ দূষণের মাধ্যমে জন জীবনের বিভিন্ন ধরণের অসুবিধার সৃষ্টি হচ্ছে।

ইতোমধ্যে ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ করেছেন । সংবাদে বর্ণিত ঘটনা প্রচলিত আইন মোতাবেক দণ্ডণীয় অপরাধ ও বেআইনী কার্যক্রম মর্মে প্রতীয়মান হয় । বর্নিত সংবাদ অভিযোগ ও পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী উক্ত ঘটনা দ্যা পেনাল কোড , ১৮৬০; এর ২৭৮ , ৪২৭ , ৪৩১ ধারাসহ বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন , ২০১০ লংঘন ও অপরাধ মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয় ।

এমতাবস্থায় ওই ঘটনা জনস্বার্থে ও ন্যায় বিচারের উদ্দেশ্যে আদেশে বর্ণিত সংবাদ ও অভিযোগ বর্ণিত আইন অনুসরণপূর্বক অপরাধ উদ্ঘাটন , সুষ্ঠু তদন্ত , আসামীদের চিহ্নিতকরণ সহ বিস্তারিত তদন্ত প্রয়োজন মর্মে প্রতীয়মান হয়।

এর আগে সংবাদ প্রকাশিত হয় যে, লাখাই উপজেলার বুল্লা বাজারে সুতাং নদীর তীরকে বিনা অনুমতিতে ঘাট হিসেবে ব্যবহার করে বালুবাহী লঞ্চ ভিড়িয়ে চলছে রমরমা বালুর ব্যবসা । লঞ্চের ঢেউয়ে ভাংছে আশপাশের গ্রামের ঘরবাড়ী , বালু স্থানাগুরের পাম্পের প্রচণ্ড শব্দে হচ্ছে শব্দদূষণ । বালু স্থানান্তরের জন্য ব্যবহৃত পাইপ গুলি বসানো হয়েছে সরকারি জমি এবং রাস্তাঘাট এর উপর দিয়ে ।

পাইপ বসানোর কারণে রাস্তাঘাট ভেঙে যাচ্ছে । এ ব্যাপারে ( ৬ জুলাই ) এলাকার ভুক্তভোগীরা লাখাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শরিফ উদ্দিনের নিকট একটি অভিযোগ দায়ের করেন ।

সরেজমিনে দেখা যায় , বুল্লা সিংহ গ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মুখস্থ রাস্তা সহ পূর্ববুল্লা গ্রামের একাধিক রাস্তা পাইপ থেকে নিঃসৃত পানির তোড়ে ভেঙে গিয়েছে । বাজারের সন্নিকটে বাড়ি ঘরের দেয়াল মেশিনের কম্পনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে । পশ্চিম বুল্লা গ্রামের নদীর তীরবর্তী ঘরবাড়ি লঞ্চের ঢেউয়ে ভেঙে যাচ্ছে ।

এলাকার জনপ্রতিনিধি সহ বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি এ ব্যবসার সাথে জড়িত বলে জানা যায় । এলাকার লোকজন অভিযোগ করেন , প্রভাবশালীদের ক্ষমতার দাপটে তারা অসহায় । চোখের সামনে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাচ্ছে । এ ব্যাপারে কেউ কিছু বললেই ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন তারা ।

এ বিষয়ে লাখাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শরিফ উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান , বুল্লা বাজারের আশেপাশে কোন বালুরঘাট নেই । এভাবে অনুমতি ছাড়া কাউকে এসব করতে দেয়া হবে না । এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

Developed By The IT-Zone