ঢাকাশনিবার , ১৮ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

করোনা আতঙ্কেও ধল বাজারে নারী পুরুষের উপচে পড়া ভিড় : বাড়ছে ঝুঁকি

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ১৮, ২০২০ ১:৩৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

শেখ শাহাউর রহমান বেলাল:: করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে বিভিন্নভাবে গণসচেতনতা গড়ে তোলা হচ্ছে। কিন্তু এরপরও হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লুকড়া ইউনিয়নের ধল সড়ক বাজারে কমছে না লোকসমাগম। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে সাপ্তাহিক এই হাটে ক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের উপচে পড়া ভিড়। কয়েকজন ছাড়া কারো মুখেই নেই মাস্ক।

শনিববার (১৮ এপ্রিল) সকালে সরেজমিনে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়। বাজারে হাজারো মানুষের ভিড়। খুচরা ব্যবসায়ী ও ক্রেতা সাধারণেরা কাঁচামালসহ নিত্যপণ্য কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। নারী পুরুষের অবাধ চলাফেরা।

স্থানীয়রা জানান, এখানে প্রতিদিন সকালে বাজার বসে। এ সময় বাজারে কাঁচামালসহ নিত্যপণ্য সামগ্রী ওঠে প্রচুর। আশপাশের গ্রাম থেকে আসা ব্যবসায়ীরা কাঁচামাল কিনতে আসেন এখানে। এছাড়া আসেন স্থানীয় খুচরা ব্যবসায়ীরাও। একইসঙ্গে সাধারণ ক্রেতারাও কিনে থাকেন এখানকার শাক-সবজিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। ফলে সহস্রাধিক লোকের সমাগম ঘটে এই বাজারে।

 

ছবি : ছবিটি আজ শনিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে সদর উপজেলার ধল বাজার থেকে তোলা হয়েছে । ছবি  : বেলাল

সম্প্রতি দেশের করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব পরিস্থিতিতে লোকসমাগম কমাতে হবিগঞ্জ জেলায় সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে দুপুর ২টা পর্যন্ত হাট বাজার খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। তবে এসব নির্দেশ অমান্য করে আগের মতো এখনো সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে নিয়মিত বসানো হচ্ছে হাট-বাজার। ফলে কমছে না লোকসমাগম। এতে করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি।

বাজারে আসা কাঁচামাল ব্যবসায়ী রমিজ আলী বলেন, ‘করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে কাঁচামালের চাহিদা বেড়েছে অনেকটাই। ক্রেতা সাধারণের এ চাহিদা পূরণে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই মানুষ কিনতে আসে, আমরাও বিক্রি করছি।’

সাধারণ ক্রেতা আয়ুব আলী বলেন, ‘করোনা নিয়ে সচেতন আছি। তবুও প্রয়োজনের তাগিদে হাজারো মানুষের ভিড়ে তরকারিসহ অন্যান্য পণ্যসামগ্রী কিনতে এসেছি।’

এদিকে, স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, গণপরিবহন বন্ধ হওয়াতে বিভিন্ন কাচামাল আসতে পারছে না। একারণে বাজার বসলেই মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। আর তাই এখানে লোকসমাগম বেড়েছে। এতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকির আশঙ্কা করছেন সচেতন মহল।

এই বাজারের ইজারাদার আক্তার মিয়ার সঙ্গে কথা হলে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জ জানান, গত কয়েকদিন মানুষ ঘরের মধ্যে থাকলেও আজ রাস্তায় এবং বাজারে লোক সমাগম বেশি। তবে তাদের অধিকাংশই বাজার করতে বাড়ি থেকে বের হয়। কেনাকাটা করে তারা আবার চলে যায়।

তিনি আরও বলেন, যতটুকু সম্ভব বাজারে আসা মানুষ জনকে সতর্ক করছি। আশা করি এ সমস্যার সমাধান খুব তাড়াতাড়ি করতে পারব

এদিকে দলবেধে বাজারে আসা নারী-পুরুষ অবাধে চলাফেরা করলেও গোটা কয়েকজন ছাড়া কারও মুখে ছিলনা মাস্ক। করোনা ঝুঁকিতে থাকা গোটা দেশে যখন লকডাউন তখন এ ধরনের জনসমাগম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপুর্ণ বলে মনে করছেন স্থানীয়রাও।

 

Developed By The IT-Zone