ঢাকাবুধবার , ১৬ মার্চ ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

একটি ঘরের আকুতি অসহায় ভূমিহীন বৃদ্ধা ফুল ভানুর

জি কে ই্উসুফ
মার্চ ১৬, ২০২২ ৫:৪০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বয়স ৮০ ছুঁই ছুঁই, বয়সের ভারে শরীরের চামড়ায় পরে গেছে ভাঁজ । সেই সাথে শরীরে আগের শক্তি নেই বৃদ্ধা ফুল ভানুর । কোন কামকাজ করতে পারেন না । মানুষের সায় সাহায্য নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে কোনরকম দিনাতিপাত করছেন । স্বামী আরিফ উল্লাহ মারা গেছেন প্রায় ২০/২৫ বছর আগে ।

তাদের ঐরসে দুই ছেলে থাকলে ও ছোট ছেলে বউ বাচ্চা নিয়ে ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় শ্রমিক হিসেবে চাকুরী করেন। বড় ছেলে আসকির মিয়া ভবঘুরে জীবন যাপন করে মাজারে ঘুরে বেড়ান দেশের বিভিন্ন স্থানে । বছরের পর বছর সময় অতিবাহিত হওয়ার পর মন চাইলে মাঝে মধ্যে আসেন এলাকায়।

একসময় বৃদ্ধা ফুল ভানুর সাজানো সংসার নিজের বাড়ি জমিজমা সব কিছু থাকলেও সময়ের আবর্তনে বর্তমানে ভূমিহীন গৃহহীন হয়ে অন্যের বাড়িতে থাকেন আশ্রিত হয়ে।

এনআইডি অনুযায়ী বর্তমান বয়স প্রায় ৮০ এর কাছাকাছি হলেও এখনো পাননি কোন বয়স্ক বিধবা ভাতাসহ সরকারী বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা।
বলছিলাম হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দিগলবাগ গ্ৰামের মরহুম আরিফ উল্লাহ র স্ত্রী বৃদ্ধা ফুল ভানুর কথা।

তার সাথে সরেজমিনে কথা ‌বললে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে জানান, আমি মাইনষের বাড়িতে থাকি মাইনষের সাহায্য নিয়া খাইয়্যা না খাইয়্যা কোন মতে চলতেছি দেখইন আমি সরকারের কোনো ভাতা টাতা ও পাইনা ।

বয়স্ক ভাতার লাইগা মেম্বার চেয়ারম্যানের দ্ধারে দ্ধারে ঘুরছি বিভিন্ন মানুষের দ্বারে দ্বারে গেছি সবাই আশা দিলেও এখন পর্যন্ত পাইছিনা। আমার অনেক বয়স অইছে বর্তমানে ৮০ অইব । আর কত বয়স অইলে বয়স্ক ভাতা পাইমু খও।

কোন ভাতাটাতা তো পাইনা ওই, আমার নিজের থাকার এক্কান ঘর ও নাই । তবে মরার আগে যদি নিজের এক্কান ঘরে থাইকা মরন ওইত তাহলে শান্তি পাইতাম। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার কাছে আমার অনুরোধ আমারে যদি থাকার এক্কান ঘর বানাইয়া দেন আমি তার লাইগ্যা দোয়া করমু।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার ( ইউএনও ) বর্ণালী পালের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,তার এনআইডি কার্ড নিয়ে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা ভূমি অফিসে যোগাযোগ করতে বলেন। আমরা যাচাই বাছাই করে তাকে একটি ঘরসহ নিয়ম অনুযায়ী সাহায্য করার চেষ্টা করব ।

Developed By The IT-Zone