ঢাকাবুধবার , ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঋণ প্রদানের প্রলোভন দেখিয়ে জনৈক নারীকে কু-প্রস্তাব : আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ইকবাল শরীফ সাকীর দুর্নীতির তদন্ত শুরু

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১ ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার :   আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ইকবাল শরীফ সাকী একের পর দূর্নীতি ও প্রতারণা করে আছেন বহাল তবিয়তে। তবে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় অনুসন্ধানী সংবাদ প্রকাশে টনক নড়েছে কর্তৃপক্ষের। ইকবাল শরীফ সাকী’র প্রতারণার শিকার ভোক্তভোগী একাধিক ব্যক্তির অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছে দপ্তরগুলো।

 

এর আগে গত ৭ ফেব্রæয়ারী শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সুরাবই গ্রামের ছমির আলীর পুত্র ফোরকান আলী বাদী হয়ে আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ইকবাল শরীফ সাকী’র বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, দুর্নীতি দমন কমিশন, এনএসআই ও বাংলাদেশ ব্যাংক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তার অভিযোগ আমলে নিয়ে সংস্থাগুলো তদন্তে নেমেছে বলে জানা গেছে।

 

ছবি : আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ইকবাল শরীফ সাকীর ফাইল ছবি

 

 

এদিকে, অভিযোগ থেকে নিজেকে বাঁচাতে সাকী বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন বলে জানা গেছে। জানা যায়, আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড থেকে গত ২০১৬ সালের ৩ মার্চ ২৫ লক্ষ টাকা ঋণ গ্রহণ করেন ফোরকান আলী। ঋণ গ্রহণের সময় জামানত হিসেবে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার অলিপুর শিল্প এলাকায় অবস্থিত ১৩.৫০ শতাংশ জায়গা জামানত রাখেন তিনি। ওই সময় আইডিএলসি ফাইন্যান্স মনোনীত কোম্পানির লোক দ্বারা ১৩.৫০ শতাংশ জায়গার ভ্যালুয়েশন করানো হয়। প্রতি শতাংশ জায়গার দাম ২০ লক্ষ টাকা দেখানো হয়। যার মোট মূল্য ২০১৬ সালে ছিল ২ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা। নিয়মিত কিস্তি পরিশোধের এক পর্যায়ে ১৬ লক্ষ ৯৫ হাজার ৭শ’ ৭২ টাকা বকেয়া থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীক কাজে ফোরকান আলী ঢাকায় ব্যস্ত থাকেন। ওই সময় ১-২ কিস্তি জমা দিতে সমস্যা হয়।

 

ওই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ২০১৮ সালে ২৮ সেপ্টেম্বর ফোরকান আলীকে কোন ধরণের নোটিশ না পাঠিয়ে গোপনে সিন্ডিকেট করে পূর্ব পরিচিত বর্তমানে চৌধুরী বাজার খোয়াই মুখ এলাকার বাসিন্দা আবু লেইছ মিয়ার পুত্র ফজলে রাব্বী রাসেলের কাছে বিক্রি করেন। ফোরকান আলীর ২ কোটি ৭০ লক্ষ টাকার জমি মাত্র ২৮ লক্ষ টাকায় বিক্রয় করে দেয় আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার মোঃ ইকবাল শরীফ সাকী। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৫ কোটি টাকার উপরে।

 

মাত্র ২ বছরের ব্যবধানে ১৬ লক্ষ ৯৫ হাজার ৭শ’ ৭২ টাকা ঋণ পরিষদের বাকি থাকায় প্রায় ৫ কোটি টাকার সম্পত্তি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে নিলামে বিক্রি করে দেয়ায় হবিগঞ্জ জেলাজুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে, সাকীর বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে আরও কিছু অজানা তথ্য। জানা যায়, ইকবাল শরীফ সাকী আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার হিসেবে চাকুরী করার সুবাদে একের পর এক নানা অপকর্ম করেও পার পেয়ে যাচ্ছেন।

 

অফিসে সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষকে ভুল-বাল বুঝিয়ে টাকা, জমি ও মূল্যবান জিনিস আত্মসাত, সেটাকে প্রতারণা করে উচ্চ দামে বিক্রি, নিলাম গ্রহীতার কাছ থেকে কমিশন আদায়, নারী সেবা গ্রহিতাদের যৌন হয়রাণি ইত্যাদি।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক নারী জানান, কিছু অর্থ ঋণের জন্য তিনি আইডিএলসি ফাইন্যান্স হবিগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ইকবাল শরীফ সাকী’র কাছে গেলে সাকী তাকে কৌশলে স্থানীয় একটি ফাস্ট ফুডের দোকানে নিয়ে যান। ঋণ প্রদানের প্রলোভনে নারীকে কূ-প্রস্তাব দেন তিনি। পরে ওই নারী বিষয়টি স্থানীয়দের জানানোর ভয় দেখালে কৌশলে সেখান থেকে সটকে পড়েন সাকী।

Developed By The IT-Zone