ঢাকাবুধবার , ২৯ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আধুনিকতার ছোঁয়ায় অনেকটাই কমে গেছে কৃষকের ঘাম ঝরা পরিশ্রম

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ২৯, ২০২০ ১১:১০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হৃদয় হাসান শিশির, বানিয়াচং প্রতিনিধি   :  আধুনিকতার ছোয়ায় অনেকটাই কমে গেছে কৃষকের ঘাম ঝরা পরিশ্রম। কারন আগেকার দিনে কৃষকেরা অনেক পরিশ্রম করে ফসল চাষ করত, তারা দিন রাত পরিশ্রম করে ফসল ঘরে তুলত।  কিন্তু বর্তমানেে আধুনিক যন্ত্রপাতি বের হয়ে অনেকটাই সহজ করে দিয়েছে কৃষকেরা ফসল উৎপাদন পদ্ধতি। সহজে ঘরে ও তুলতে পাড়ে উৎপাদিত ফসল গুলো। এ প্রসঙ্গে বানিয়াচংয়ে এক কৃষকের সাথে কথা বললে তিনি আমার হবিগঞ্জ কে জানান, বর্তমান সময়ে অনেকটাই কমে গেছে কৃষকের ঘাম ঝরা পরিশ্রম।  কারন আগেকার দিনে আমরা লাঙ্গল দিয়ে নিজেরা টেনে এবং যারা বিত্তশালী ছিল তারা গরু দিয়ে হালচাষ করত। পরে গরু দিয়ে অনেকে নিজে নিজে সল মারাই করত।

ছবি : বর্তমানে ধান তোলতে ব্যবহার করা হচ্ছে ট্রাক্টর ! যা আগে ছিল মহিষের গাড়ি

তিনি আরও বলেন এখন তো আধুনিক প্রযুক্তি বের হয়ায় খুব আরাম করে জমি কেটে গাড়ি দিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসা যায়।  কিন্তু আগেকার দিনে ধান মাড়াই করে কেউ ঠেলাগাড়ি, কেউ গরুর গাড়ি, কেউ বা মহিষের গাড়ি দিয়ে ফসল বাড়িতে আনত।  কিন্তু এখন কত ধরনের গাড়ি বের হইছে, যেমন ধান টানার টলি,ট্রাক (ডায়না গাড়ি) ইত্যাদি দিয়ে মানুষ ফসল সহজে বাড়িতে তুলে আনে।  কিন্তু বানিয়াচংয়ে একজন কৃষক তোফাজ্জুল চৌধুরী আজও ধরে রেখেছেন সেই অতীতের সৃতি গুলো। তিনি এখন ও আগেকার দিনের মত ফসল উৎপাদন করেন এবং ফসল গড়ে তুলেন।

 

এ বিষয়ে তার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বর্তমানে অনেক আধুনিক যন্ত্র বের হয়েছে যা খুব সহজে ফসল উৎপাদন ও সহজে ফসল গড়ে তুলা যায়।  কিন্তু আমার বাপ -দাদা সবাই যেভাবে ফসল উৎপাদন করছেন আমিও সেই ভাবে ফসল উৎপাদন করি। কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আমার বাপ-দাদা ঐতিহ্য ধরে রাখতে চাই। এজন্য আমিও যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন আমি আমার বাপ-দাদার স্মৃতি ধরে রাখার চেষ্টা করব এবং আমার ছেলেদেকে ও ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য বলে যাব।

Developed By The IT-Zone