ঢাকাবুধবার , ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আজমিরীগঞ্জে স্বর্ণের দোকান কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু

দিলোয়ার হোসেন,আজমিরীগঞ্জ
সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২ ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আজমিরীগঞ্জ পৌরসভার টানবাজারে স্বর্নের দোকানে ঝন্টু দে (২১) নামে এক দোকান কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১৯সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ৯ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ প্রশাসনকে অবগত না করে মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে গেলে মঙ্গলবার দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ। মৃত ঝন্টু দে সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার কামারহাঠি গ্রামের ললীত রঞ্জন দে’র পুত্র।

সে বিগত এক বছর যাবত আজমিরীগঞ্জ পৌরসভাধীন বাজারে শ্রীশ্রী রাধা গোবিন্দ জিউর আঁখড়া সংলগ্ন গৌতম বনিকের স্বর্নের দোকানে কর্মচারী ছিলেন। তবে কেন সে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে দোকান মালিক, পুলিশ ও তার স্বজনরা কোন কিছুই বলতে পারছেনা।

স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, সোমবার সন্ধা রাতে ঝন্টু সকলের অগোচরে দোকানে কীটনাশক পান করে চটপট করতে থাকে। স্থানীয়রা তাকে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরন করেন। হবিগঞ্জ যাবার রাস্তায় সে মৃত্যুবরন করেন।

এদিখে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে অবগত না করে রাতেই ঝন্টুর মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলার কামারহাঠি গ্রামে নিয়ে যায়।

পরদিন আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ জানতে পেরে মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল রির্পোট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরন করেন।

পুলিশ প্রশাসনকে অবগত না করে মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া ও গ্রামের বাড়িতে থেকে মরদেহ উদ্ধার করা নিয়ে এলাকায় নানান আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিচ্ছে।

ঝন্টুর বড় ভাই মন্টু চন্দ্র দে বলেন, আজমিরীগঞ্জ বাজারে একটি দোকানে সে কাজ করতো। দোকান মালিক গৌতম বনিক হঠাৎ করে রাতে ফোন দিয়ে জানান ঝন্টু বমি করা শুরু করেছে । আমরা রাতেই আজমিরীগঞ্জ গিয়ে হাসপাতালে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় দেখতে পাই।

সেখান থেকে চিকিৎসক রেফার করলে হবিগঞ্জ নেয়ার পথে রাস্তায় সে মারা যায়। রাতেই তার মরদেহ নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে আসি। তবে সে কি কারনে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে সে কারন তিনি জানেননা বলে জানান। কীটনশাক পান করে আত্মহত্যার বিষয়টি দোকান মালিক গৌতম বনিকও জানেন না বলে আমাদের জানান।

আজমিরীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুক আলী দৈনিক আমার হবিগঞ্জ কে বলেন, ঝন্টুর কীটনাশক পান করেছে শুনেছি। মরদেহ এনে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরন করা হবে। তবে আত্মহত্যার কারন জানা যায়নি। ময়নাতদন্ত ও বিস্তারিত তদন্তের পর সঠিক কারন জানা যেতে পারে।

Developed By The IT-Zone