ঢাকারবিবার , ১২ জানুয়ারি ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আইসিডিডিআরবি’র কর্মকর্তা বানিয়াচংয়ের সামসুল আলম এর দাফন সম্পন্ন

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
জানুয়ারি ১২, ২০২০ ৪:২৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রায়হান উদ্দিন সুমন,বানিয়াচং থেকে ॥ ঢাকার মহাখালিতে অবস্থিত আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র (আই সি ডি ডি আ বি)’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার সামসুল ইসলাম লিটনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার (১২জানুয়ারি) বেলা ২ঘটিকায় সাগরদীঘি পূর্বপাড় খান অটো রাইছ মিলে নিহত লিটনের দ্বিতীয় জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। জানাজার নামাজে তার দীর্ঘদিনের স্কুল জীবনের সহকর্মী,সাংবাদিক,বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী,তার কর্মস্থলের সহকর্মীরা ছাড়াও নানা শ্রেণি পেশার মানুষ জানাজার নামাজে অংশ গ্রহন করেন।

 

নামাজের পূর্বে নিহত সামসুল আলম লিটনের কর্মময় জীবন নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন জেলা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক অ্যাডভোকেট মনসুর উদ্দিন আহমেদ ইকবাল,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খান। এর আগে নিহত লিটনের প্রথম জানাজার নামাজ তার কর্মস্থল আইসডিডিআরবিতে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এই অফিসের উধ্বর্তন কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সকল স্তরের কর্মকর্তারা তার জানাজার নামাজে অংশ নে। সেখানে তাকে এক নজর দেখার জন্য ঢাকার নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন অনেক শুভাকাঙ্খি।

উল্লেখ্য,গত শুক্রবার (১০জানুয়ারি) তার কিছু কলিগ ও সহকর্মীদের নিয়ে পাবনা যাওয়ার উদ্দেশ্যে মোটরসাইকেল যোগে রওয়ানা দেন নিহত লিটন। পথিমধ্যে সাভার-আরিচা রোডে পৌছে রাস্তায় থাকা স্পিডব্রেকারে হুছট খেয়ে রাস্তার মধ্যেই ছিটকে পড়েন। ব্যস্ততম এই মহাসড়কে থাকা দ্রুত গতির একটি ট্রাক তার মোটরসাইকেলসহ তাকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলেই গুরুতর আহত হন লিটন। এই অবস্থায় তাকে সাভারের মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রাখা হয়। পরে দীর্ঘ ৩০ ঘন্টা পর্যবেক্ষনে থাকার পর গত শনিবার (১১জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৪টায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সামসুল আলম লিটন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৩৪ বছর। তিনি স্ত্রী, ৪বছর বয়সে ১ পুত্র সন্তান,৩ ভাই, ১ বোন,মা-বাবাসহ অসংখ্য আতœীয়স্বজন ও গুনগাহী রেখে গেছেন। নিহত লিটনের ছোট ভাই জাহির আলম শিপন বানিয়াচং শচীন্দ্র কলেজে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত আছেন। তার একমাত্র বোন সুরভি আক্তার শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করে বর্তমানে আইসিডিডিআরবি’র সিলেট শাখায় কর্মরত আছেন। অপর দুই ভাই জাহাঙ্গির আলম ও শফিউল আলম কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত।

 

নিহত সামসুল আলম লিটন বানিয়াচং ৩নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নের অন্তর্গত সাগরদীঘি পূর্বপাড়ের অনু মিয়ার বড় পুত্র। নিহত মেধাবি এই লিটন কুষ্টিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাবলিক হেলথ বিষয়ে বিবিএ,এমবিএসহ প্রতিটি বিষয়ে রেকর্ড সংখ্যক নাম্বার পেয়ে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। সেখান থেকে বের হয়ে প্রথমে ব্র্যাকের প্রধান কার্যালয়ে উচ্চ পদে যোগদান করেন।

 

পরবর্তীতে তিনি আইসিডিডিআরবি’তে প্রোগ্রাম ম্যানেজার হিসেবে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কর্মরত ছিলেন। এই অফিস থেকে মাত্র কয়েক দিন আগে নিহত লিটন ভিয়েতনাম সফর করে দেশে আসেন। নিহত লিটনের এই অকালে চলে যাওয়াকে কোনে কিছুতেই মানতে পারছেননা এলাকাবাসীসহ তার বন্ধু-বান্ধবরা। সবাই তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে স্মম্ভিত হয়ে গেছেন। মেধাবি এই লিটনের মৃত্যুতে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

 

(ছবিটি তার ফেসবুক থেকে নেয়া)

Developed By The IT-Zone